যে কারণে বিব’স্ত্র’র ভিডিও ফেসবুকে ছেড়ে দেয় দেলোয়ার বাহি’নী

নোয়াখালীর বেগমগ’ঞ্জের একলাশপুরে গৃহব’ধূকে বিব’স্ত্র করে নি’র্যাত’নের ঘটনায় দা’য়ের করা মা’ম’লার প্রধান আ’সা’মি বা’দলকে ঢাকা থেকে গ্রে’প্তার করা হয়েছে। এছাড়া, মা’ম’লার আরেক আ’সা’মি দেলো’য়ারকে অ’স্ত্র’সহ নারায়ণগঞ্জ থেকে গ্রে’প্তার করেছে র‌্যা’পি’ড অ‌্যা’ক’শন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

সোমবার (৫ অক্টোবর) সকালে র‌্যা’ব সদ’র দ’প্তর থেকে গ’ণমাধ‌্যমে পাঠানো এক খু’দে বার্তায় এ তথ‌্য জানানো হয়।

এর আগে রোববার (৪ অক্টোবর) রাত ১টার দিকে নি’র্যা’তিতা গৃহব’ধূ বা’দী হয়ে নয়জনকে আ’সা’মি করে বেগ’মগঞ্জ ম’ডেল থা’নায় মা’ম’লা করেন। মা’ম’লা দা’য়ে’রের পর বেগমগ’ঞ্জ থেকে আরো দুই আ’সা’মিকে গ্রে’প্তার করে পু’লিশ। এ নিয়ে মা’ম’লার চার আসা’মিকে গ্রে’প্তার করা হলো।

গ্রে’প্তার অ’পর দুই আ’সা’মি হলেন- মো. রহিম (২৫) ও মো. রহমত উ’ল্যাহ (৩৮)। এরপর থেকেই গৃহব’ধূকে বি’ব’স্ত্র করে নি’র্যাত’নের ভিডিও ফেসবুকে ভাই’রাল হওয়ার কারণগুলো একে একে সামনে বেরিয়ে আসছে।

অনৈ’তিক প্র’স্তাবে রাজি না হওয়ায় বি’ব’স্ত্র করে নি’র্যা’তনের ভি’ডিও সামাজিকমাধ্যমে ছ’ড়িয়ে দেয়া হয়েছে বলে মা’ম’লার এজা’হারে উল্লেখ করেছেন ভু’ক্তভো’গী না’রী।

মা’ম’লার এজা’হা’রে ওই না’রী আরো অভি’যোগ করেছেন, তার স্বামীকে বেঁ’ধে রেখে আ’সামি’রা তাকে ধ’র্ষ’ণের চেষ্টা করেন। তারা এ ঘট’নার ভিডিওচি’ত্র ধারণা করেন।

গত এক মাস ধরে তারা এই ভি’ডিও ছ’ড়িয়ে দেয়ার কথা বলে তাকে অনৈ’তিক প্র’স্তাবও দিচ্ছিলেন। তিনি এই অনৈ’তিক প্রস্তাবে রা’জি না হওয়ায় তারা ফেস’বুকে ভি’ডিওটি ছে’ড়ে দেন।

সেপ্টেম্বর মাসের শুরুর দিকের এই ঘটনায় ওই না’রী রোববার বেগমগ’ঞ্জ থা’নায় দুটি মা’ম’লা করেন। একটি মা’ম’লা করেন না’রী ও শিশু নি’র্যা’তন দ’মন আ’ইনে, অন্যটি প’র্নো’গ্রা’ফি নি’য়ন্ত্র’ণ আ’ইনে। দুই মা’ম’লাতেই নয়জনকে আ’সা’মি করা হয়েছে।

জানা গেছে, ওই না’রীর ১৮ বছর আগে বি’য়ে হয়। তার স্বা’মী দ্বিতীয় বি’য়ে করায় কয়েক বছর আগে তিনি বা’পের বাড়ি চলে আসেন। তার এক ছেলে ও মেয়ে আছে। মেয়ের বি’য়ে হয়ে গেছে। বাড়িতে ওই না’রী ছেলে ও এক ভাই’য়ের স’ঙ্গে থাকতেন।

স’ম্প্রতি স্বামী তার বাড়িতে আসা-যাওয়া করতে শুরু করলে এ নিয়ে কয়েকজন যু’ব’ক আ’প’ত্তি জা’নিয়ে সেদিন ওই না’রী’কে নি’র্যা’তন করেন। ঘটনার দিন ওই নারী তার স্বা’মীর স’ঙ্গেই ছিলেন। নি’র্যাত’নকারীরা তার স্বা’মীকেও আ’ট’ক করে নিয়ে যায়। পরে ওই না’রীর ভাই এক হাজার ৫০০ টাকা দিয়ে তাকে ছা’ড়িয়ে আনেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *