প্রে’মের টা’নে ই’সলা’ম গ্রহণ করে ই’তালির ত’রু’ণী বাংলাদেশে

কথায় আছে, ‘প্রেম মানে না কোনো ধ’র্ম, বর্ণ বা দেশ’। সে কথা আবারও প্রমাণিত হলো। সুদূর ইতালি ছেড়ে বাংলাদেশি যুবকের প্রেমে পড়ে দেশ ছেড়েছেন প্রবাসী ত’রু’ণী। বৃহস্পতিবার রাতে বাং’লাদেশি ‘লক্ষ্মীপুরের

রায়পুর উপজে’লার মো. ইকবাল হোসেন (২৭) প্রেমের টানে ইতালি থেকে ছুটে এসেছেন এই তরুণী। ভালোবেসে বিয়েও করেছেন দু’জন। প্রবাসী তরুণী ইসলাম ধ’র্ম গ্রহণ করে প্রবাসী নাম পাল্টে হয়েছেন খাদিজা আক্তার

(১৯)। ইকবাল উপজে’লার সোনাপুর ইউনিয়নের পশ্চিম সোনাপুর গ্রামের ওসমান আলী পাটোয়ারী বাড়ীর আক্তার হোসেনের ছেলে। এ সংবাদ শুনে শুক্রবার সকাল থেকে তাদের দেখার জন্য দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসছে বহু মানুষ। ইকবাল ও তার পরিবারের লোকজন জানান, প্রায় ৬ বছর আগে ইকবাল ইতালিতে গিয়ে প্রবাসী ওই তরুণীদের একটি কোম্পানীতে চাকরির সুবাদে খাদিজার স’ঙ্গে পরিচয় ও প্রেম হয় তার। এরপর প্রায় ২ বছর ধরে

ইকবাল বাংলাদেশে চলে আসনে। পরে প্রবাসী ওই তরুণী ইকবালের ফোনে ও ফেসবুকের মাধ্যমে প্রেমের সম্পর্ক ধা’রাবাহিকভাবে চালিয়ে আসছে। কিন্তু কাগজপত্রের কিছু সমস্যার কারণে ইকবাল ফের ইতালিতে যেতে পারছে না। তাই গত বৃহস্পতিবার রাতে খাদিজা লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে আমা’দের গ্রামের বাড়ীতে আসলে ‘ই’সলা’মী শরীয়ত মোতাবেক আমর’া দুজন বিয়ে করি। ভাষাগত কিছু সমস্যা থাকলেও বাঙালি নারীর মতোই স্বাভাবিকভাবে সব কাজ করছেন খাদিজা।

পরছেন বাঙালি পোশাকও। শ্বশুরবাড়িতে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন খাদিজা। ইকবালের স’ঙ্গে প্রেম, বিয়ে, বাংলাদেশ সম্পর্কে জানান অনুভূ’ত ি। তার ভা’ষা’য়, বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও পরিবেশ আমা’র অনেক ভালো লেগেছে। ইকবালকে অনেক ভালোবাসি। তার জন্যই বাংলাদেশে আসা। আমর’া দুজন আজই (শুক্রবার) হানিমুনের জন্য কক্সবাজার ও মালয়েশিয়া যাব’ো। আপনারা সবাই আমা’দের জন্য দোয়া করবেন। ছেলে-পুত্রবধূর জন্য দোয়া চাইলেন ইকবালের বাবা আক্তার হোসেন।

তিনি বলেন, ছেলের বউ দেখে আমর’া আনন্দিত। ছেলে-পুত্রবধূর উজ্জ্বল ভবি’ষ্যৎ কামনা করি।সোনাপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আক্তার হোসেন বলেন, প্রেমের টানে ইতালির তরুণী রায়পুরে এসে উভয়ের পরিবার মেনে নেওয়ায় বাঁধলেন সুখের ঘর। বৃহস্পতিবার রাতেই তাঁর বাবা-মা বউকে বরণ করে নিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.