ড্রা’গ, ডিপ্রে’শন, অর্থ – সিবিআ’ইয়ের এই প্রশ্নগুলিতেই মেজা’জ হা’রান রিয়া!

ড্রা’গ, ডি’প্রেশন থেকে সুশান্তের আর্থিক লেনদেন। টানা তিন দিন ২৫ ঘণ্টায় সিবিআ’ইয়ের ১০০ প্রশ্নের মুখে রিয়া চক্রবর্তী। জিজ্ঞা’সাবাদে মে’জাজ হা’রান, ড্রা’গ নিয়ে প্রশ্নে ঘা’বড়ে যান বলে সিবি’আই সূত্রে খবর।

শুক্রবার ১০ ঘণ্টা। শনিবার ৭ ঘণ্টা। রবিবার ৮ ণ্টা। সুশান্ত-মৃ’ত্যু তদ’ন্তে টানা তৃতীয় দিন সিবিআ’ইয়ের ম্যা’রাথন জিজ্ঞা’সাবাদের মুখে রিয়া চক্রবর্তী।

৩ দিনে ২৫ ঘণ্টার জে’রায় ১০০ টি প্রশ্নের মুখে পড়েন রিয়া। সূত্রের খবর, লাগা’তার জিজ্ঞা’সাবাদের তৃতীয় দিনে কয়েকজন মহিলা পুলি’শক’র্মীকেও ডাকা হয়। কিন্তু কী ছিল প্রশ্নমা’লায়? সিবিআই সূত্রে খবর, । সুশান্তর আর্থিক লেনদেন, ডি’প্রেশন ও ড্রা’গ অ্যা’ঙ্গল নিয়ে রিয়াকে প্রশ্ন করা হয়

৮ জুন কেন সুশান্তের ঘর ছা’ড়েন রিয়া? জানতে চান তদ’ন্তকারীরা। ওই দিন সকালে কি সুশান্তের সঙ্গে হা’তা হা’তি হয় রিয়ার? দু’জনের সম্পর্ক ভাল থাকলে কেন যাওয়ার সময় রিয়াকে বি’দায় জানাননি সুশান্ত? জানতে চাওয়া হয়, কেন সুশান্তর মোবাইল নম্বর ব্ল’ক করেন রিয়া?

সূত্রের দাবি, ড্রা’গ যোগ নিয়ে প্রশ্ন করলে ঘা’বড়ে যান সুশান্তের বা’ন্ধবী। পাশাপাশি মহেশ ভট্টকে পাঠানো হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ নিয়েও রিয়াকে প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়।

সিবিআই সূত্রে খবর, সুশান্তর বা’ন্ধবীকে জিজ্ঞেস করা হয়, মহেশ ভট্টকে কেন এমন মেসেজ করেন, যেখানে বোঝানো হয় আপনি নিজেই চলে যেতে চান?

রিয়া চক্রবর্তী ও স্যামুয়েল মিরা’ন্ডাকে এদিন একযোগে জিজ্ঞা’সাবাদ করা হয়। সূত্রের দাবি, সুশান্তের বাড়ির অপ্রয়োজনীয় আসবাবপত্র সরিয়ে দেওয়ার কথা বলেন রিয়া।

কিন্তু, সুশান্তের হাউস ম্যানেজার স্যামুয়েল সেসব বি’ক্রি করে দেন। স্যামুয়েল দাবি করেন, সুশান্তের এটিএম কার্ডের পিন জানতেন রিয়া কিন্তু তার বিরো’ধিতা করেন সুশান্তের বান্ধবী। সব মিলিয়ে সুশান্ত-মৃ’ত্যু তদ’ন্তে রহ’স্য আরও ঘ’নীভূ’ত।

Leave a Reply

Your email address will not be published.