এক ঘণ্টার জন্য বরিশালের বিভাগীয় কমিশনার কিশোরী রাইমু

কিশোরী রাইমু জামানকে মঙ্গলবার বিকেলে এক ঘণ্টার জন্য বরিশাল বিভাগীয় কমিশনারের প্রতীকী দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। বিভাগীয় কমিশনার অমিতাভ সরকারের কাছ থেকে প্রতীকী কমিশনারের দায়িত্ব গ্রহণ করে এই কিশোরী।

দায়িত্ব নেওয়ার পর বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের অধীনস্থ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা রাইমু জামানকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন। দায়িত্ব নেওয়ার পর রাইমু বরিশালের ছয় জেলাকে নারীবান্ধব করা এবং নারীর প্রতি সহিং’সতা রো’ধে বেশ কিছু সুপারিশ তুলে ধরে। সে সব সুপারিশ বাস্তবায়নের আশ্বাস দিয়েছে বিভাগীয় প্রশা’সন।

কন্যাশিশু দিবস উপলক্ষে নারীর ক্ষমতায়নের জন্য বেসরকারি সংস্থা প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল এমন আয়োজন করে। কিশোরী রাইমু জামান বরগুনা সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী।

সে বরগুনা শহরের কলেজ রোডের বাসিন্দা ইতালিপ্রবাসী রাকিবুজ্জামান ও মুক্তা জামানের একমাত্র মেয়ে। আবৃত্তি, বিত’র্কে বিভাগীয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন রাইমু বিভাগীয় কমিশনারের দায়িত্ব পাওয়ার প্রতিক্রিয়ায় বুধবার বলে, ‘এটা আমার জীবনের একটি স্মরণীয় ঘটনা। নারী অধিকার আদায়ের পথে এটা অণুপ্রেরণা জোগাবে।’

রাইমু বিভাগীয় কমিশনারের দায়িত্ব নেওয়ার পর গোলটেবিল আলোচনায় নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধ, বাল্যবিয়ে রোধসহ করণীয় তুলে ধরে এক ঘণ্টার কমিশনার রাইমু। সেখানে সে আবৃত্তি করে, ‘আমি সেই কন্যা আমিই সেই নারী, সাহায্য সহযোগিতায় আমি সব পারি, সামান্য উৎসাহ পেলে আমি খুলতে পারি নব দিগন্ত…।’

প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের বরিশাল বিভাগীয় ব্যবস্থাপক শাহারুখ সোহেল প্রথম আলোকে বলেন, প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল আন্তর্জাতিক কন্যাশিশু দিবস উপলক্ষে ‘গার্লস টেকওভার’ শীর্ষক একটি প্রতীকী কর্মসূচির আয়োজন করে।

এর মাধ্যমে মেয়েরা যে সমান সুযোগ ও অধিকার পেলে সমানভাবে শিখতে, নেতৃত্ব দিতে, সিদ্ধান্ত নিতে ও সাফল্য পেতে পারে; সে বিষয় প্রতি বছর বৃহত্তর জনগোষ্ঠীর কাছে তুলে ধরে।

এ বছর বিশ্বের ৭০টিরও বেশি দেশে ‘গার্লস টেকওভার’ অনুষ্ঠিত হয়। এই প্রতীকী কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিশ্বব্যাপী মেয়েরা সরকারি, বেসরকারি বিভিন্ন শীর্ষস্থানীয় পদগুলোতে কিছু সময়ের জন্য প্রতীকী ক্ষমতা গ্রহণের মধ্য দিয়ে সমতার দাবি তুলে ধরে।

এই কিশোরীর স্বপ্ন বাস্তবায়নের আশ্বাস দিয়ে বিভাগীয় কমিশনার অমিতাভ সরকার বলেন, নারীরা রাষ্ট্রের অনেক গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকলেও নানাভাবে বঞ্চনার শিকার হচ্ছে। এমন করে এক ঘণ্টার জন্য নয়, আজকের কন্যাশিশুরা ভবিষ্যতে দেশ পরিচালনায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে বলে তিনি মনে করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *